Today : 26 November, 2020

কমনওয়েলথ ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড পেল বাংলাদেশের ইনজামাম



কমনওয়েলথ ইয়ুথ পারসন অব দ্য ইয়ারের চূড়ান্ত তালিকায় স্থান পেলো বাংলাদেশের আহসানউল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে সিএসই’র ছাত্র শেখ ইনজামামুজ্জামান। ২০২০ সালের পুরস্কারের জন্য ১২টি দেশের ১৬ জনের তালিকায় স্থান পেয়েছেন তিনি। শেখ ইনজামামুজ্জামান যশোর জেলার কোতয়ালী উপজেলার শেখ মো. আখতারুজ্জামান ও হাসিনা ইয়াসমিনের একমাত্র পুত্র সন্তান।

গত ১৮ ফেব্রুয়ারি কমনওয়েলথের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশি নাগরিক শেখ ইনজামামুজ্জামান তার কাজের মাধ্যমে বিশ্বে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য (এসডিজি) পূরণে অবদান রাখায় এ তালিকায় উঠে এসেছেন।

ইনজামাম স্টাডি বাডি নামক স্টার্ট-আপ এর প্রতিষ্ঠাতা। উক্ত প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ইনজামাম লার্নিং ডিস্যাবিলিটিতে ভুক্তভোগী বাচ্চা এবং তাদের পিতামাতা এই দুই স্তরকে সমন্বিত ও সম্পৃক্ত করে তাদের সমস্যা মেটাতে একটি বিকল্প শিক্ষা প্লাটফর্ম প্রদান করেছে। অগমেন্টেড রিয়েলিটি বুকস, আইওটি হার্ডওয়্যার এবং গেমস এর মত অত্যাধুনিক প্রযুক্তির মাধ্যমে সে লার্নিং ডিস্যাবল বাচ্চাদের মনন ও মস্তিস্কের সাথে সামঞ্জস্য উপযোগী কনটেক্সটচুয়ালাইজড টুলস ও রির্সোস তৈরি করে থাকে, যার যথোপযুক্ত প্রয়োগ ও ব্যবহারে তাদের মস্তিস্কের ত্রুটিযুক্ত অংশে উদ্দীপনা সঞ্চারের মাধ্যমে ধীরে ধীরে তাদের মস্তিস্ককে পূর্ণ কর্মক্ষম করে তুলে এবং তারা অপরাপর সুস্থ্য স্বাভাবিক বাচ্চাদের মতো স্বচ্ছন্দ্য সাবলীলভাবে পড়াশোনায় অগ্রগতি অর্জনে সমর্থ হয়।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, সামাজিক উদ্যোক্তা ইনজামাম উদ্যোগের মাধ্যমে ৮০০ এরও বেশি মাতা-পিতা এবং ১০০০ এরও বেশি লার্নিং ডিস্যাবিলিটি বাচ্চাদের সেবা প্রদান করেছে। আগামী ১১ মার্চ কমনওয়েলথের সদর দপ্তর লন্ডনের মার্লবোরো হাউজে আনুষ্ঠানিকভাবে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে। এসডিজির ১৭টি লক্ষ্য পূরণে অবদান রাখছেন এমন উদ্যোক্তাদের এ বছর কমনওয়েলথ ইয়ুথ পারসন অব দ্য ইয়ারের স্বীকৃতি দেওয়া হবে।